September 16, 2018

ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বার্ষিক কর্মসম্পাদন ব্যবস্থাপনা’ শীর্ষক এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে “বার্ষিক কর্মসম্পাদন ব্যবস্থাপনা”

শীর্ষক এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

 

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান বলেছেন, সরকারের দীর্ঘমেয়াদী লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে শিক্ষক-কর্মকর্তা সবাইকে দুর্নীতির উর্ধ্বে থেকে স্বচ্ছতা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করতে হবে। 

১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং শনিবার চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু) আয়োজিত ‘বার্ষিক কর্মসম্পাদন ব্যবস্থাপনা’ শীর্ষক এক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইউজিসি’র চেয়ারম্যান এ কথা বলেন। ইউজিসি ও সিভাসু যৌথভাবে এ কর্মশালার আয়োজন করে।

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিভাসু) উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ডা. মো. ইসমাইল খান, ইউজিসি’র সচিব ড. মো. খালেদ এবং পরিচালক (বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়) ড. মো. ফখরুল ইসলাম।

উক্ত অনুষ্ঠানে  স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিভাসু’র রেজিস্ট্রার মীর্জা ফারুক ইমাম।

ইউজিসি’র চেয়ারম্যান বলেন, জনগণের অর্থে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো পরিচালিত হয়। কাজেই আমরা জনগণের কাছে দায়বদ্ধ। সাথে সাথে আমরা নিজেদের কাছেও দায়বদ্ধ। তাই আমাদের উচিত সততা, নিষ্ঠা ও জবাবদিহিতার সাথে কাজ করা।

প্রফেসর আবদুল মান্নান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সাথে সম্পাদিত ‘বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি’ জাতীয় লক্ষ্যমাত্রারই অংশ। সরকারের ২০২১, ২০৩০, ২০৪১ সালের বিভিন্ন লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। এবং ২১০০ সালে বাংলাদেশের জাতীয় নেতৃত্বের কী করা উচিত তারও একটি পরিকল্পনার কথা বলছেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী। আর এটিই হলো একজন ভিশনারি লিডারের কাজ।’ 

তিনি আরও বলেন, একটি প্রতিষ্ঠানের সাফল্যের জন্য প্রয়োজন যোগ্য নেতৃত্ব। একজন যোগ্য নেতাই জানেন কীভাবে সর্বনিম্ন সম্পদ ব্যবহার করে সর্বোচ্চ উৎপাদন সম্ভব। যোগ্য নেতৃত্বের কারণেই সিভাসু অতি অল্প সময়ে একটি মডেল ইনস্টিটিউশন এ পরিণত হয়েছে। কমিটমেন্ট নিয়ে সততার সাথে কাজ করতে পারলে আগামী দশ বছরে সিভাসু শুধু ‘ওয়ার্ল্ড র‌্যাংকিং’এ স্থান পাবে না, এটি আন্তর্জাতিকভাবে উচ্চশিক্ষার ‘রোল মডেল’এ পরিণত হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর ‘বার্ষিক কর্মসম্পাদন ব্যবস্থাপনা’বিষয়ক উক্ত কর্মশালায় রিসোর্স পারসন হিসেবে বক্তব্য উপস্থাপন করেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব মো. কামরুল হাসান, শিক্ষা মন্ত্রণালযের উপসচিব জাকিয়া পারভিন, ইউজিসি’র পরিচালক (অর্থ) মো. রেজাউল করিম হাওলাদার, সিনিয়র সহকারী সচিব মো. নজরুল ইসলাম ও মোর্শেদ আলম খোন্দকার।

এর আগে ইউজিসি’র চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান একটি পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ল্যাব এবং এনিম্যাল হসপিটাল ডাটাবেজ ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার উদ্বোধন করেন।