November 6, 2018

দ্বিতীয় মেয়াদে উপাচার্য হলেন প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ

vc_cvasu_front

         Prof. Dr. Goutam Buddha Das

 

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়

দ্বিতীয় মেয়াদে উপাচার্য হলেন প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ

 

মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জনাব মোঃ আবদুল হামিদ কর্তৃক চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিভাসু) উপাচার্য পদে দ্বিতীয় মেয়াদে চার বছরের জন্য নিয়োগ পেলেন প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের স্মারক নং- শিম/শা:১৮/চ:ভে:এ:বি:-১/২০১৪/৩৮৩ তারিখ: ০৫ নভেম্বর ২০১৮ মূলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপ-সচিব হাবিবুর রহমান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে তাঁকে দ্বিতীয় মেয়াদে উপাচার্য পদে নিয়োগ দেয়া হয়। আগামী ৯ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখ থেকে তিনি দ্বিতীয় মেয়াদে উপাচার্যের দায়িত্ব গ্রহণ করবেন। উল্লেখ্য যে, উপাচার্য পদে তাঁর বর্তমান মেয়াদ শেষ হবে ৮ ডিসেম্বর ২০১৮। 

সিভাসু’র এনিম্যাল সাইন্স এন্ড নিউট্রিশন বিভাগের প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ ১৯৬৩ সালে চাঁদপুর শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮৫ সালে বি.এসসি ইন এনিম্যাল হাজবেন্ড্রি (অনার্স) ডিগ্রি অর্জন করেন। একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮৬ সালে পোল্ট্রি নিউট্রিশন বিষয়ে এমএসসি এবং ২০১২ সালে একই বিষয়ে সফলতার সাথে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেন। ২০০৮ সালে তিনি হিউম্যান রিসোর্চ ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে পোস্ট গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেন।

প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ ২০০০ সালে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রফেসর পদে যোগদান করেন। তিনি এনিম্যাল নিউট্রিশন বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন এবং ডেনমার্ক, লন্ডন, থাইল্যান্ড ও ভারত থেকে এনিম্যাল সাইন্স ও পোল্ট্রি নিউট্রিশনে উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুড সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন হিসেবে ২ বছর দায়িত্ব পালন করেন। এনিম্যাল সাইন্স ও নিউট্রিশন বিভাগে ৯ বছর বিভাগীয় প্রধান হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন। শিক্ষকতার পাশাপাশি তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে সিন্ডিকেট, একাডেমিক কাউন্সিল এবং ফিন্যান্স কমিটির সদস্য হিসেবে অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

দীর্ঘ ৩০ বছরের শিক্ষকতা জীবনে প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ বঙ্গবন্ধু কৃষিবিদ পরিষদের আজীবন সদস্য এবং চট্টগ্রাম অঞ্চলের কার্যকরী কমিটির সভাপতি ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের আওয়ামী লীগপন্থী প্যানেল থেকে তিনি টানা চারবার শিক্ষক সমিতির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৫ সালে বাংলা একাডেমি থেকে তাঁর রচিত “পোল্ট্রি উৎপাদন” শীর্ষক গ্রন্থটি প্রকাশিত হয়। এছাড়াও দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জার্নালে তাঁর ২৫টি বৈজ্ঞানিক গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে।

উপাচার্য পদে দ্বিতীয় মেয়াদে চার বছরের জন্য নিয়োগ প্রদান করায় তিনি মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।