August 13, 2017

ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে মালয়েশিয়ান ইন্টার্ন শিক্ষার্থীদের ফিডব্যাক অনুষ্ঠান

ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে মালয়েশিয়ান ইন্টার্ণ শিক্ষার্থীদের ফিডব্যাক অনুষ্ঠান

 

মালয়েশিয়ার সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ‘ইউনিভার্সিটি মালয়েশিয়া তেরেঙ্গানো (ইউএমটি)’ এর ছাত্ররা ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস ব্যাপী ইন্টার্নশীপ কর্মসূচি সম্পন্ন করেছে। ৮ আগস্ট ২০১৭ ইং বিকাল ৩টায় তাদের এক মাসের ইন্টার্নশীপ কার্যক্রমের উপর এক ফিডব্যাক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ অনুষদ এ ফিডব্যাক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত উক্ত ইন্টার্নশীপ ফিডব্যাক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো. রুহুল আমীন। প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. হাবিবুর রহমান, পেডরোলা বাংলাদেশ লিমিটেড ও হালদা ফিশারিজের চেয়ারম্যান নাদের খান। ফিশারিজ অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. এম. নুরুল আবছার খান-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বহিরাঙ্গণ কার্যক্রম পরিচালক প্রফেসর ড. এ.কে.এম. সাইফুদ্দীন, ড. শেখ আহমাদ আল নাহিদ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে মালয়েশিয়ান শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশে তাদের ইন্টার্নশীপ কার্যক্রমের উপর মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে অর্জিত অভিজ্ঞতা উপস্থাপন করেন। অনুষ্ঠানে মালয়েশিয়ান ১০ শিক্ষার্থীকে সনদপত্র তুলে দেন বিভাগীয় কমিশনার মো. রুহুল আমীন।

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে ‘ইউনিভার্সিটি মালয়েশিয়া তেরেঙ্গানো (ইউএমটি)’ মাঝে স্বাক্ষরিত সমঝোতা চুক্তি অনুযায়ী ২০১৬ সালে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ অনুষদের ১ম ব্যাচের ৩৫ শিক্ষার্থী ইন্টার্নশীপ করার জন্য মালয়েশিয়া সফর করেন। গত ১০ জুলাই ইউএমটি’র ১০ জন শিক্ষার্থী ও একজন শিক্ষক ইন্টার্নশীপ সম্পন্ন করার জন্য বাংলাদেশে আসেন। অন্যদিকে, আগামী ১২ সেপ্টেম্বর এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ অনুষদের ২য় ব্যাচের সকল শিক্ষার্থী ইন্টার্নশীপ করতে  মালয়েশিয়া গমন করবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিভাগীয় কমিশনার বলেন, বাংলাদেশে মৎস্য খাতের মাধ্যমে অর্থনৈতিক অগ্রগতি ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন সম্ভব। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের গবেষণা কর্ম মৎস্য খাতকে গুণগত পরিবর্তনে সহায়তা করবে। তিনি বলেন, মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশের মধ্যকার শিক্ষা ও ছাত্রছাত্রী বিনিময়ের মাধ্যমে দু’দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত ইন্টার্নশীপ কর্মসূচিকে তিনি স্বাগত জানান।

উপাচার্য তাঁর বক্তব্যে বলেন, ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দিন দিন অগ্রগতি হচ্ছে। আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় অন্য উচ্চতায় পৌঁছাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক বলেন, ইন্টার্নশীপ কর্মসূচির মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা আন্তর্জাতিক মানের অভিজ্ঞতা অর্জনের সুযোগ পাচ্ছে। এখানে দু’টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা লাভবান হচ্ছে। ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টার্নশীপ কর্মসূচিকে ব্যতিক্রম উল্লেখ করে তিনি বলেন, এর মাধ্যমে শিক্ষা ও সংস্কৃতিতে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।

অনুষ্ঠানে ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের ডিন প্রফেসর মো. আ: হালিম, রেজিস্ট্রার মীর্জা ফারুক ইমাম, প্রক্টর প্রফেসর গৌতম কুমার দেবনাথ, শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলমগীর হোসেনসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা ও ছাত্রছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।