September 16, 2018

‘বাংলাদেশে কৃষি গ্রন্থাগার এবং তথ্যকেন্দ্রগুলোর জন্য জাতীয় পর্যায়ের নেটওয়ার্ক’ শীর্ষক দিনব্যাপী এক সেমিনার অনুষ্ঠিত।

ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে “বাংলাদেশে কৃষি গ্রন্থাগার এবং তথ্যকেন্দ্রগুলোর জন্য জাতীয় পর্যায়ের নেটওয়ার্ক” শীর্ষক দিনব্যাপী এক সেমিনার অনুষ্ঠিত

 

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু) ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং রবিবার ‘বাংলাদেশে কৃষি গ্রন্থাগার এবং তথ্যকেন্দ্রগুলোর জন্য জাতীয় পর্যায়ের নেটওয়ার্ক’ শীর্ষক দিনব্যাপী এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের উচ্চশিক্ষা মানোন্নয়ন প্রকল্পের উদ্যোগে সিভাসু অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত উক্ত সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুড সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন প্রফেসর ডা. মো. রায়হান ফারুক।

বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরিয়ান মো: হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. এম. নুরুল আবছার খান, ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের ডিন প্রফেসর মো: আ: হালিম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনফরমেশন সায়েন্স এন্ড লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক ড. মো: সাইফুল ইসলাম, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরিয়ান ও বাংলাদেশ লাইব্রেরিয়ান অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম এবং ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ডাইরিয়াল ডিজিজ রিসার্চ, বাংলাদেশ-এর লাইব্রেরিয়ান ড. মো. নাজিম উদ্দিন। উক্ত অনুষ্ঠানে  স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রকৌশলী শাহ মো. জিল্লুর রহমান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, বর্তমান যুগে নেটওয়ার্ক থাকা দরকার এবং লাইব্রেরির ক্ষেত্রে এটি আরও বেশী জরুরি। কারণ কোন লাইব্রেরিই স্বয়ংসম্পূর্ণ নয়। তাঁরা আরও বলেন, গবেষকদের বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের রিসোর্স প্রয়োজন হয় এবং সেটা একটা লাইব্রেরি একা যোগান দিতে পারেনা। এই জন্য প্রয়োজন লাইব্রেরিগুলোর মধ্যে নেটওয়ার্কিং। আর এক লাইব্রেরি থেকে অন্য লাইব্রেরিতে রিসোর্স শেয়ার করা গেলে ছাত্র-শিক্ষক-গবেষক সবাই উপকৃত হবে।

বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, গবেষক, লাইব্রেরিয়ান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তাদের অংশগহণে অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী সেমিনারে মোট ১২টি প্রবন্ধ উপস্থাপিত হয়।