April 5, 2018

ওয়ান হেলথ ইস্যু বাস্তবায়নের প্রয়োজন সমন্বিত উদ্যোগ

“ওয়ান হেলথ ইস্যু বাস্তবায়নের প্রয়োজন সমন্বিত উদ্যোগ”

সিভাসুতে এমপিএইচ কোর্সের ওরিয়েন্টেশনে বক্তারা

 

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে ওয়ান হেল্থ ইনস্টিটিউটের অধীনে মাস্টার্স ইন পাবলিক হেলথ (এমপিএইচ) কোর্সে ভর্তিকৃত প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন (সমারম্ভ) ৪ মার্চ ২০১৮ইং তারিখ সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। দক্ষ ও সক্ষম জনস্বাস্থ্য পেশাদার তৈরির লক্ষ্যে জনস্বাস্থ্য বিষয়ে এই স্নাতকোত্তর ডিগ্রি প্রদানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।  

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত উক্ত ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম (ইউএসটিসি) উপাচার্য প্রফেসর ডা. প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের ডিন এবং চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. সেলিম মো: জাহাঙ্গীর, সিভাসুর মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. এম. নুরুল আবছার খান, ফুড সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন প্রফেসর ডা. মো. রায়হান ফারুক ও ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের ডিন প্রফেসর মো. আ: হালিম। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল মেডিসিন এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজ-এর পরিচালক প্রফেসর ডা. এম.এ. হাসান চৌধুরী এবং বিজিসি ট্রাস্ট মেডিকেল কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল প্রফেসর ডা. জাহিদ হোসেন শরীফ।

ওয়ান হেলথ ইনস্টিটিউটের পরিচালক প্রফেসর ড. শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রফেসর ড. এএমএএম জুনায়েদ ছিদ্দিকী। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ বলেন, এমপিএইচ কোর্সে ভর্তিকৃত ছাত্রছাত্রীদের আমরা মানসম্মত আন্তর্জাতিক মানের ডিগ্রি প্রদান করতে চাই। আর এ জন্য হিউম্যান ডাক্তারদের সহযোগিতা প্রয়োজন। আমরা সবাই মিলে ওয়ান হেল্থ ইনস্টিটিউটকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই।

উপাচার্য আরও বলেন, এমপিএইচ কোর্সে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থ বরাদ্দ দেয়া হবে।

অনুষ্ঠানে ইউএসটিসি’র উপাচার্য প্রফেসর ডা. প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া বলেন, ওয়ান হেলথ ইস্যুকে কার্যকর করতে মাঠ পর্যায়ে মেডিকেল অফিসার, ভেটেরিনারি সার্জন, প্রাণিপালন কর্মকর্তা এবং পরিবেশ বিজ্ঞানীদের সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। এমপিএইচ কোর্সে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে তিনি সব ধরণের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. সেলিম মো: জাহাঙ্গীর বলেন, প্রাণি ও মানুষের চিকিৎসা ব্যবস্থাপনার মধ্যে একটি চমৎকার সেতুবন্ধন রয়েছে। প্রাণি ও মানুষের স্বাস্থ্যগত বিষয়ে উভয় পেশাজীবীদের মধ্যে সমন্বয় করা গেলে ওয়ান হেলথ ইস্যুটি বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।

তিনি আরও বলেন, এত অল্প সময়ের মধ্যে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি এতদূর এগিয়ে যাবে আমাদের ধারণা ছিল না। এটা আমাদের জন্য গর্বের বিষয়। আজকে যারা উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এমপিএইচ কোর্সে ভর্তি হলো তারা ইতিহাসের একটা অংশ হয়ে গেল। তিনি আরও বলেন, কোলাবরেশনস ছাড়া মানসম্মত গবেষণা ও শিক্ষা কার্যক্রম সম্ভব নয়। তাই আমাদের মধ্যে সমন্বয় থাকা দরকার। আশাকরি সিভাসু তাদের মেধা ও যোগ্যতা নিয়ে আরও এগিয়ে যাবে। তিনি বলেন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ, চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও অন্যান্য মেডিকেল কলেজ এ বিষয়ে সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করবে।

এই স্নাতকোত্তর কোর্সে প্রথম ব্যাচে মোট ৯ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৮ জন এমবিবিএস ও ১ জন ডিভিএম (ডক্টর অব ভেটেরিনারি মেডিসিন) ডিগ্রিধারী। এমপিএইচ কোর্সের মেয়াদ এক বছর ছয় মাস (৩ সেমিস্টার)।