January 3, 2018

“সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করলে অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব” -সিভাসুর শিক্ষাবর্ষ সমারম্ভ অনুষ্ঠানে শাইখ সিরাজ

“সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করলে অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব”

সিভাসুর শিক্ষাবর্ষ সমারম্ভ অনুষ্ঠানে শাইখ সিরাজ

 

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের শিক্ষাবর্ষ সমারম্ভ (ওরিয়েন্টেশন) অনুষ্ঠান ০২ জানুয়ারী ২০১৮ইং তারিখে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল ১১টায় সিভাসু অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে ‘সমারম্ভ বক্তা’ হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি উন্নয়ন ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব এবং চ্যানেল আই-এর পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ-এর সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. এম. নুরুল আবছার খান, ফুড সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন প্রফেসর ডা. মো. রায়হান ফারুক, ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের ডিন প্রফেসর এম.এ. হালিম, প্রক্টর প্রফেসর গৌতম কুমার দেবনাথ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ছাত্রকল্যাণ পরিচালক প্রফেসর ড. মো. মাসুদুজ্জামান।

সমারাম্ভ বক্তার বক্তব্যে শাইখ সিরাজ নবীন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, খাঁটি মানুষ হওয়ার জন্য তোমাদেরকে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি মানবিক ও সামাজিক শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে; যাতে তোমাদের দ্বারা সমাজ, দেশ ও জাতি উপকৃত হয়। তিনি আরো বলেন, তোমরা কোন বিষয়ে পড়ছ সেটা প্রধান বিবেচ্য নয়। আসল কথা হলো সবাইকে মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। প্রত্যেকের নিজস্ব লক্ষ্য-উদ্দেশ্য থাকতে হবে। আর অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে প্রয়োজন সততা, নিষ্ঠা এবং কাজের প্রতি ভালোবাসা। শাইখ সিরাজ বলেন, স্বাধীনতার পর দেশের সবচেয়ে বড় সাফল্য খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন। আর এতে অসামান্য ভূমিকা রয়েছে দেশের কৃষিবিদ, গবেষক এবং গণমাধ্যমের। আশাকরি সাফল্যের এই ধারাবাহিকতায় তোমরা নতুনরাও অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। তোমাদের হাত ধরে দেশের কৃষিতে আসবে আরো ব্যাপক অগ্রগতি।

নবীনদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমার দেখা মতে সিভাসু’তে শতভাগ ব্যবহারিক ক্লাস এবং জ্ঞান অর্জনের সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। সবকিছু মিলিয়ে তোমাদের বিশ্ববিদ্যালয় জীবন অনেক বেশী আনন্দের হবে। তোমাদের লক্ষ্যে পৌঁছাতে এই প্রতিষ্ঠান সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

উপাচার্য বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হল জ্ঞান চর্চা ও জ্ঞান সৃষ্টির জায়গা। আর এর জন্য প্রয়োজন একাগ্রতা এবং নিরলস প্রচেষ্টা। আমরা এখানে একটা শিক্ষা ও গবেষণার পরিবেশ সৃষ্টি করতে পেরেছি। নতুনদেরকে এটা ধরে রাখতে হবে। নিজেদেরকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

নতুনদের উদ্দেশ্যে উপাচার্য আরো বলেন, গবেষণামূলক কাজে নিজেদেরকে সম্পৃক্ত করে জ্ঞানের জগৎকে আরো সমৃদ্ধ করতে হবে।