Students

  Teachers

  Staffs

 

সিভাসুতে কভিড-১৯ সনাক্তকরণ কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন





চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু) নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্তকরণ ল্যাব চালু হয়েছে। সীতাকুণ্ডের ফৌজদারহাটে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেজে (বিআইটিআইডি) করোনা পরীক্ষার ল্যাব চালুর এক মাস পর আজ শনিবার সিভাসুতে চালু হলো দ্বিতীয় ল্যাব।

প্রথমে একটি পিসিআর মেশিন দিয়ে নমুনা পরীক্ষা শুরু হলেও সিভাসুতে পাঁচটি পিসিআর মেশিন সম্পূর্ণরুপে প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। সিভাসুর প্যাথলজি অ্যান্ড প্যারাসাইটোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. জুনায়েদ সিদ্দিকী বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগ চাইলে এখানে পাঁচটি পিসিআর মেশিন দিয়ে করোনা শনাক্তের কাজ করা সম্ভব। পর্যান্ত জনবল-স্বেচ্ছাসেবীও রয়েছে।

জুনায়েদ সিদ্দিকী বলেন, ‘প্রথমে আমরা ৫০০ কিট পেয়েছি। বিআইটিআইডি আমাদের কতগুলো নমুনা দিচ্ছে সেটাও একটা বিষয়। তাই আপাতত একটি পিসিআর মেশিন দিয়ে কাজ শুরু করেছি। একটি মেশিনে দৈনিক প্রায় শ খানেক নমুনা পরীক্ষা করা যাবে।’সিভাসু ছাড়াও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, ইউএসটিসি ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের মাস্টার্স, ইন্টার্ন ও পিএইচডি লেভেলের শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে গঠিত ৪০ সদস্যের একটি দল এ ল্যাবে করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ কার্যক্রম পরিচালনা করবে। ছয়জন করে তিনটি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে উক্ত দলের সদস্যরা পালাক্রমে কাজ করবে।

এর আগে গত মঙ্গলবার করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার জন্য অনুমতি পায় সিভাসু। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ তথ্য জানানো হয়। সিভাসুর উপাচার্য বরাবর পাঠানো উক্ত চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, সারা বিশ্বের মতো কোভিড-১৯ ভয়াবহতায় বাংলাদেশও আক্রান্ত। সে পরিপ্রেক্ষিতে দেশব্যাপী পিসিআর টেস্টের মাধ্যমে রোগী শনাক্তকরণ পরিধি বাড়ানোর জন্য সরকারের নির্দেশনা আছে। সুতরাং এই দুর্যোগময় মুহূর্তে আপনার প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতা একান্তভাবে কাম্য। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কোভিড-১৯ নমুনা, পিসিআর টেস্ট কিট এবং প্রয়োজনীয় লজিস্টিক সরবরাহ করবে। এই বিষয়ে পরিচালক (স্বাস্থ্য) আপনার সঙ্গে সমন্বয় করবেন। এতে মহাপরিচালকের সম্মতি আছে।

এদিকে সিভাসুর ল্যাবে করোনা পরীক্ষা শুরু হলে বিআইটিআইডিতে চাপ কমবে এবং চট্টগ্রামে পরীক্ষার হারও বেড়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।এর আগে গত ৯ এপ্রিল স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের উপসচিব মোহাম্মদ মুনিরুজ্জামান বাকাউল স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে সিভাসুসহ চারটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবে করোনার নমুনা পরীক্ষার সুপারিশ করা হয়।